অরুনিমা-কান্ট্রিসাইড-রিসোর্ট

নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার মধুমতির তীরে পানিপাড়া গ্রামে প্রায় ৫০ একর জায়গা নিয়ে গড়ে উঠেছে অরুনিমা কান্ট্রিসাইডরিসোর্ট। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের এই চমৎকার ইকোপার্কটির কাছাকাছি রয়েছেনানা দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক স্থান।অরুনিমা ইকোপার্ক ও কান্ট্রিসাইডপানিপাড়া পর্যটন কেন্দ্র অরুনিমার প্রবেশ পথে রয়েছে সারিবদ্ধ মন্দির ঝাউ।অভ্যর্থনা জানানোর ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে আছে সারিবদ্ধ গাছ। আরও নজর কাড়বেরাস্তার দুপাশে গড়ে তোলা দেশী-বিদেশি অসংখ্য ফুল গাছের বাগান। এখানকারপ্রাইম গার্ডেন অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান। এছাড়া গোলাপ বাগানের সৌন্দর্যেমোহিত হবেন। আছে পাহারবেষ্টিত বাংলো দীঘি।

বাংলোর পশ্চিমে একটি দ্বীপ তৈরি করা হয়েছে পরীস্থান নামে এই দ্বীপ যেনসত্যিই স্বপ্নপুরী। দ্বীপটির পশ্চিমে চারদিক বেষ্টিত লেক ও লেকের পাড়েরয়েছে আম্রপালি বাগান। লেকে বেড়ানোর জন্য রয়েছে ছোট বড় ডিঙ্গি। এখান থেকবেশ দূরে রয়েছে বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের শিশুস্বর্গ ও চিত্রশালা।

আধুনিক বাংলো, চিড়িয়াখানা, পুকুর, লেক, গোলাপ বাগান, বাটার ফ্লাই পার্ক, ছেড়াদ্বীপ, ঘোড়ার গাড়ি, গরুর গাড়ি, গলফ খেলার মাঠ সব কিছু মিলিয়ে এটিসত্যিই একটি আকর্ষনীয় পর্যটন স্থান। খাবারের ব্যবস্থা, বার-ইব-কিউ, তাজাফলের রস, গাড়ী পাকিং, শিশুদের খেলার জায়গা ইত্যাদি আপনাকে মুগ্ধ করবে।রয়েছে কনফারেন্স হল, ট্রেনিং হল, নৌকা ভ্রমন ব্যবস্থা। নানান গাছপালারমাঝে এখানে বনভোজন করতে ভালো লাগবে সবার। অরুনিমা কান্ট্রিসাইড।

নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার মধুমতি তীরে পানি পাড়া গ্রামে প্রায় ৫০ একর জায়গা নিয়ে গড়ে উঠেছে অরুনিমা কান্ট্রিসাইড রিসোর্ট। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের এই চমৎকার ইকোপার্কটির নানা দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক স্থান। অরুনিমা ইকোপার্ক ও কান্ট্রিসাইড পানিপাড়া পর্যটন কেন্দ্র অরুনিমার প্রবেশ পথে রয়েছে সারিবদ্ধ মন্দির ঝাউ। অভ্যর্থনা জানানোর ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে আছে সারিবদ্ধ গাছ। আর নজর কাড়বে রাস্তার দুপাশে গড়ে তোলা দেশি-বিদেশি অসংখ্য ফুল গাছের বাগান। এখানকার প্রাইম গার্ডেন অন্যতম আকর্শণীয় স্থান। এ ছাড়া গোলাপ বাগানের সৌন্দর্যে মোহিত হবেন। আছে পাহাড় বেষ্টিত বাংলো দিঘি।

বাংলোর পশ্চিমে একটি দ্বীপ তৈরি করা হয়েছে পরীস্থান নামে এই দ্বীপ যেন সত্যিই স্বপ্নপুরী। দ্বীপটির পশ্চিমে চারদিক বেষ্টিত লেক ও লেকের পাড়ে রয়েছে আম্রপালি বাগান। লেকে বেড়ানোর জন্য রয়েছে ছোট বড় ডিঙ্গি। এখান থেকে বেশ দূরে রয়েছে বরেণ্য চিত্রশিল্পি এস এম সুলতানের শিশুস্বর্গ ও চিত্রশালা।

আধুনিক বাংলো, চিড়িয়াখানা, পুকুর, লেক, গোলাপ বাগান, বাতার ফ্লাই পার্ক, ছেড়াদ্বীপ, ঘোড়ার গাড়ি, গরুর গাড়ি, গলফ খেলার মাঠ সব কিছু মিলিয়ে এটি সত্যিই একটি আকর্ষণীয় পর্যটন স্থান। খাবারের ব্যবথা, বার-বি-কিউ, তাজা ফলের রস, গাড়ি পার্কিং, শিশুদের খেলার জায়গা ইত্যাদি আপনাকে মুগ্ধ করবে। রয়েছে কনফারেন্স হল, ট্রেনিং হল, নৌকা ভ্রমণ ব্যবস্থা। নানান গাছপালার মাঝে এখানে বনভোজন করতে ভালো লাগবে।