85bc35fd-2b06-4549-94ff-148d15fd66fb

পারফিউম ব্যবহারে যে ৯টি বিষয় না জানলেই নয়

  •  Articles প্রবন্ধ
  • Comments Off on পারফিউম ব্যবহারে যে ৯টি বিষয় না জানলেই নয়

আপনি কতটুকু স্মার্ট আর কেমন আপনার রুচি, তা অনেকাংশেই বলে দেবে আপনার ব্যবহৃত পারফিউমের ঘ্রাণ। আর তাই নিজেকে সবার কাছে আকর্ষণীয় ও রুচিশীল হিসেবে উপস্থাপনে পারফিউম এর যথাযথ প্রয়োগ বাঞ্ছনীয়। আর পারফিউম ব্যবহারের ক্ষেত্রে যে নিয়মগুলো আপনার অবশ্যই জানা থাকা প্রয়োজন – • সুগন্ধি বা পারফিউম মাখতে হবে ধরন অনুযায়ী। কড়া পারফিউম এর ব্যবহার হবে পরিমিত, তবে হালকা ধরণের পারফিউম শরীরের কয়েক জায়গায় প্রয়োগ করা যেতে পারে। • পারফিউম সাধারণত শাওয়ার নেয়ার পর বা গোসল করার পর শরীরে মাখাই উত্তম। এভাবে পরিষ্কার শরীরে পারফিউম প্রয়োগে তা সতেজ থাকে অনেক বেশী সময়। • সাধারণত পারফিউম বা Cologne শরীরে প্রয়োগ করাই ভালো,কেননা সুগন্ধি কাপড়ে প্রয়োগে অনেক সময় তা কাপড়ে দাগ ফেলতে পারে। তাই আপনার পারফিউমটির ধরন বুঝে তা শরীরে বা কাপড়ে প্রয়োগ করুন। • Eau de Toilette এবং Eau de Cologne – এই দুই ধরণের সুগন্ধি শরীরে প্রয়োগ করতে হয়। আর, Perfume এবং Eau de Parfum – এই দুই ধরণের সুগন্ধি জামা বা কাপড়ের উপর প্রয়োগ করতে পারবেন। সুগন্ধিটি কোন ক্যাটাগরিতে পড়েছে, তা আপনার সুগন্ধির মোড়কেই উল্ল্যেখ করা থাকবে। তা দেখে নিয়ে সেভাবে প্রয়োগ করতে পারেন। • ঘামের দুর্গন্ধমুক্ত রাখতে আমরা যে ডিওডোর্যাান্ট ব্যবহার করি, তা শরীরের সেই জায়গায়ই বেশী করে ব্যবহার করতে হবে যে স্থানগুলো বেশী করে ঘামে। বাহুমূলে বিশেষ করে প্রয়োগের সাথে সাথে ঘাড়, গলা ও বুকেও দেয়া যেতে পারে। • আপনার পারফিউম এর ঘ্রাণ ও সতেজতাকে দীর্ঘস্থায়ী করতে আপনার কবজি, হাতের পালস পয়েন্ট, ঘাড়, গলা ও কানের লতিতে পারফিউম মাখাতে পারেন। • পারফিউম প্রয়োগের সময় তা প্রয়োগস্থল থেকে ছয় ইঞ্চি দূর থেকে স্প্রে করুন। এই দূরত্ব থেকে প্রয়োগে পারফিউম সবথেকে ভালোভাবে পরিব্যাপ্ত হয়। • কিছু সুগন্ধি রয়েছে জেল বা লোশন টাইপের। এই ধরণের সুগন্ধি শরীরে লাগানোর পর তা ভালো করে ডলে নেবেন, তাহলেই তার ঘ্রাণ থাকবে অনেকক্ষণ। • আপনি যদি আপনার পুরো শরীরে পারফিউম ছড়িয়ে দিতে চান, তাহলে একটি ভালো উপায় হল – বাতাসে পারফিউম স্প্রে করে সেই ঘন বাতাসের মধ্যে দিয়ে হেঁটে যান। এতে বাতাসে যে পারফিউম কণাগুলো স্প্রে করা হয়েছে,

Comments are closed.