চুল কাটাতে প্রয়োজনীয় ১০টি টিপস

Reviews

Verified

নিজেকে পরিপাটি রাখতে হলে, জামাকাপড়, জুতো ও আনুষঙ্গিক অন্য সবকিছুর সাথে নিজের চুল ও চুলের কাটও যত্নসমেত পরিপাটি রাখতে হয়। আর নিজের জন্য কোন চুলের কাট মানানসই তা নির্ণয়ে আমাদের সবারই কম বেশি সমস্যা হয়ে থাকে। চুল কাটানোর আগে কিছু কিছু বিষয় মনে রাখা জরুরি যেমন - কীভাবে চুলে কোন কাট দিলে তা আপনাকে মানাবে, আপনার চেহারার গড়নের সাথে কোন হেয়ার স্টাইলটি সবথেকে ভালো যায়,কোন ধরনের চুলের সাথে কি রকম হেয়ারকাট যায়। আপনার চুল কাটার আগে এই সব বিষয়গুলো বিবেচনা করে চুল কাটতে হেয়ার স্টাইলিস্টের কাছে গেলে আর কোন রকম চিন্তায় পরতে হয় না। তাই, চুল কাটতে যাওয়ার আগে থেকেই কিভাবে চুল কাটাবেন তার একটা সুনির্দিষ্ট প্ল্যান করে পার্লারে যান। চুল কাটতে যাওয়ার সময় যে প্রয়োজনীয় টিপসগুলো জানা দরকার তা জানিয়ে দিচ্ছি :

১। যদি আপনার চুলকে সাস্থ্যবান রাখতে চান তাহলে আপনাকে নিয়মিত মাথার চুলের অগ্রভাগ বা আগা কাটতে হবে। প্রতি ছয় থেকে আট সপ্তাহ অন্তর অন্তর মাথার চুলের অগ্রভাগ কাটিয়ে নিন।চুলের মাথা বা আগা কাটলে চুলের নির্জীব অংশ ঝরে চুল উজ্জ্বল হয়।

২। যাঁদের মাথার চুল অনেক বড় তাদের চুলের আগা রুক্ষ হয়ে যেতে পারে, ফেটেও যেতে পারে। আবার অনেক সময় পুষ্টির অভাবে চুল লালচে হয়ে যায়, যা দেখতে খুবই বাজে লাগে। এক্ষেত্রে চুলের জন্য মায়া করবেন না, ঝটপট চুল কেটে ফেলুন।

৩। অনেকেই আছেন যারা হালের ফ্যাশনের সাথে তাল মিলিয়ে ছলেন। তো আপডেটেড ফ্যাশন অনুযায়ী হুট করেই চুলের কোন কাট দেয়াটা একদমই বোকামি।প্রথমেই, আপনাকে ভালো করে বুঝতে হবে যে হালের চুলের কাটের ফ্যাশনটি আপনার মুখমণ্ডলের আদলের সাথে আদৌ মানানসই কিনা। যদি আপনার চেহারার গড়নের সাথে মানানসই হয় তাহলেই সেই ফ্যাশন অনুযায়ী চুল কাটুন।

৪। আপনার চুল যদি পাতলা হয় তাহলে আপনাকে এমন কাট দিতে হবে যাতে আপনার চুলের ভলিউম বেশী দেখায়। দুর্বল চুলের অধিকারীরা চুলকে ঘন দেখানোর জন্য চুলে ব্লান্ট হেয়ার কাট প্রয়োগ করতে পারেন।

৫। আপনার মুখের শেপ যদি ওভাল হয় তাহলে আপনাকে এমন হেয়ার কাট দিতে হবে যাতে আপনার চেহারা কোনভাবেই সরু লম্বাটে দেখাবে না। এ খেত্রেসমাধান হল,ডিম্বাকার মুখের অধিকারীরা চুলে এমনভাবে লেয়ার কাট দিতে পারেন যাতে চুল মুখের থুতনির নিম্নাংশ পর্যন্ত লেয়ার হয়ে থাকে।

৬। যাদের চুল অনেক বেশী পাতলা তাদের চুল বেশী লেয়ার করে কাটলে চুল আরও দুর্বল লাগে। তাই বেশী হালকা চুল অল্প লেয়ারে কাটুন।

৭। চুল যখন পার্লারে কাটাবেন, চেষ্টা করুন সবসময় একজন হেয়ার স্টাইলিস্টের কাছেই চুল কাটানোর। তিনি যখন আপনার চুল কাটবেন,তা আপনার পছন্দ মত না হলে তৎক্ষণাৎ তার চুল কাটা থামিয়ে আবার বুঝিয়ে দিতে একদম দ্বিধা বা দেরি করবেন না।

৮। চুলে নতুন কোন হেয়ার স্টাইল দেয়ার আগে শুধু আপনার মুখের শেপ এর সাথে এর মানানসইতা বিবেচনা করবেন না; চুলের কাটটি আপনার চুলের ধরনের ও গঠনের সাথেও কতটুকু মানানসই তাও বিবেচনা করবেন ভালো করে।কারণ সব গঠনের চুলের সব ধরনের হেয়ার কাটের জন্য উপযোগী নয়।

৯। নির্দিষ্ট যে কাটটি আপনি আপনার চুলে দিতে চাচ্ছেন, পারলে তার একটি ছবি আপনার হেয়ার স্টাইলিস্টকে দেখান এবং তা আপনার মুখের গড়ন ও চুলের গঠনের সাথে মানানসই হবে কি হবে না সে ব্যপারে হেয়ার স্টাইলিস্টের কাছ থেকে পরামর্শ নিতে পারেন।

১০। আপনি মাথার চুল কাটার সময় অবশ্যই কোন ঋতু চলছে তা হিসেবে নিয়ে কত দিন অন্তর অন্তর চুল কাটাবেন তা নির্ধারিত করুন। মনে রাখা ভালো, চুল গ্রীষ্মকালে অপেক্ষাকৃত দ্রুত বাড়লেও, শীতকালে তুলনামুলকভাবে দেরিতে বড় হয়।

বোনাস টিপস

অনেকেরই একটা ভ্রান্ত ধারনা থাকে যে চুল কেটে ছোট করে রাখলে তার যত্নআত্তি অল্প করলেই হয়।ব্যাপারটা আসলে এরকম যে ছোট চুলের যত্ন আরও ভালো করে নিতে হয় এবং ছোট চুলের পুষ্টি নিশ্চিত করতে হয় নিয়মিত।

তথ্যঃ ইন্ডিয়া টাইমস